বিকাশমোবাইল ব্যাংকিং

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

সম্প্রতি বিকাশের নতুন একটি আপডেট এর কারনে, একটি এনআইডি দিয়ে একাধিক বিকাশ একাউন্ট খোলার সুযোগ নেই। বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন। তাই বিকাশ একাউন্ট যেমন প্রয়জন আছে তেমনি একাধিক একাউন্ট থাকলে একটি রেখে বাকিগুলো বন্ধ করে দিতে হয়। তাই বিকাশ একাউন্ট কিভাবে বন্ধ করতে হয় তা বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

কখন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করা প্রয়োজন

অনেকগুলো কারনে আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার প্রয়োজন পড়তে পারে । উল্লেখযোগ্য গুলো তুলে ধরলাম।

  1. একাধিক বিকাশ একাউন্ট থাকলে।
  2. বিকাশ একাউন্ট নাম্বার পরিবর্তন করতে চাইলে।
  3. অন্যের নামে থাকা বিকাশ একাউন্ট নিজের নামে করতে চাইলে।
  4. নিজের নামে বিকাশ একাউন্ট অন্যের মালিকানায় দিতে চাইলে।
  5. পূর্বের বিকাশ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে।
  6. বিকাশ নিবন্ধিত সিমটি নিজের নামে না থাকলে।
  7. হারিয়ে যাওয়া বিকাশ সিম তোলার উপায় না থাকলে।
আরো পড়ুনঃ  বিকাশে জমানো টাকার উপর ইন্টারেস্ট

বিকাশ (Bkash) একাউন্ট ডিলিট বা বাতিল করব কিভাবে? এই বিষয় নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে। তাদের জন্যই আমাদের এই পোস্ট বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম পালন করতে হবে। আশা করি আমাদের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনি সব বুঝে যাবেন।আপনাকে বিকাশ একাউন্ট ডিলিট বা বাতিল করতে কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। তবে টেনশনের কিছু নেই। একাউন্ট বন্ধ করা একেবারে একটি সহজ কাজ। যদি আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড (NID=National ID Card) ঠিক থাকে। অথবা আপনি যদি অন্য কোনো ডকুমেন্ট দিয়ে একাউন্ট খুলে থাকেন তাহলে সেটির প্রয়োজন হবে। যেমনঃ পাসর্পোড, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি।

আরো পড়ুনঃ  বিকাশ উবার অফার ২০২২ । ডিসকাউন্ট: ১৮০ টাকা

আশা করছি আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা ডকুমেন্টটি ঠিক আছে। তবে চলুন আমারা ধাপে ধাপে দেখে নেই বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সমূহ।

বিকাশ ব্যালেন্স শূন্য করা

বিকাশের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী Bkash একাউন্ট বন্ধ করার প্রথম শর্ত হচ্ছে একাউন্ট ব্যালেন্স শূন্য বা জিরো (0) করতে হবে। এখন অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে ব্যালেন্স জিরো করব কিভাবে? বিকাশ একাউন্টে তো সব সময় পয়সা থাকেই। যেমনঃ ০.৭১ বা ২১.৫৮ টাকা। বলে রাখা ভাল যে অনেক ব্যাংক একাউন্টের মত আপনি চাইলে বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স শূন্য করতে পারবেন।

কিন্তু সেটা কিভাবে? সচেয়ে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে আপনার প্রিয়জনের কারো নাম্বারে সেন্ড মানি করে দেওয়া। আপনি যদি বিকাশ অ্যাাপ (Bkash App) ব্যবহার করে থাকেন তাহলে ৫০০ টাকা পর্যন্ত সেন্ড মানির জন্য কোনো চার্জ নেই। তবে *২৪৭# ডায়াল করে সেন্ডমানি করলে প্রতি বারের জন্য ৫ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে। তাই সেন্ড মানি চার্জ মাথায় রেখে বাকি টাকা প্রিয় জনের নাম্বারে সেন্ড করে দিতে পারেন।

মনে রাখবেন আপনি চাইলে দশমিকের পরের পয়সাগুলোও সেন্ড মানি (Send money) করতে পারবেন।

বিকাশ বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

এখানে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র বলতে আপনার মূল জাতীয় পরিচয়পত্র/ স্মার্ট কার্ড/ড্রাইভিং লাইসেন্স/পাসপোর্ট/অনলাইন এনআইডি প্রিন্ট কপি বোঝানো হয়েছে। মনে রাখবেন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য আপার প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র সঠিক থাকতে হবে। কারণ আইডি কার্ডে (NID) সমস্যা থাকলে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে পারবেন না। তাই আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড ঠিক রয়েছে কিনা তা যাচাই করে নিবেন। ঠিক থাকলে আপনি ফাইনাল ধাপের জন্য প্রস্তুত।

বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ

বাড়িতে বসে বিকাশ একাউন্ট খুলা গেলেও বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে আপনাকে কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে যোগাযোগ করতে হবে। তাই প্রথমে Bkash একাউন্ট শূন্য করার কাজটি সেড়ে ফেলুন। তারপর আপনার প্রয়োজনীয় কাগজ ও মোবাইল ফোন নিয়ে কাস্টমার কেয়ারে চলে যান। এই ক্ষেত্রে প্রশ্ন হতে পারে অন্য কেউ গেলে হবে কিনা? মনে রাখবেন একাউন্ট বন্ধ করতে হলে যার নামে একাউন্ট করা হয়েছে তাইকেই যেতে হবে। তারপর কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে বিকাশের প্রতিনিধিকে বলুন– “আমি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে চাই”।

আশা করি আপনি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সমূহ বুঝতে পারছেন।

সারগো আইটি নিউজ

টেক ও প্রযুক্তির সকল তথ্য সকল মানুষের সাথে শেয়ার করা এবং অনলাইনে নিরপত্তা নিশ্চিত করাই সারগো আইটি নিউজের মূল লক্ষ্য । তাই টেক ও প্রযুক্তির সকল তথ্য জানার জন্য নিয়মিত আমাদের ব্লগে চোখ রাখুন এবং বিভিন্ন আপডেট ই-মেইলে পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাবস্ক্রিপশন অন করে রাখুন।

Leave a Reply

Back to top button

Adblock Detected

Please Disable your AdBlocker