বিকাশমোবাইল ব্যাংকিং

অনলাইন এনআইডি দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

অনলাইন জগতে  টাকা লেনদেনের সবথেকে  জনপ্রিয় এবং  সহজ মাধ্যম হচ্ছে বিকাশ । বিকাশ একাউন্টের মাধ্যমে আপনি বাংলাদেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তের যেকোন সময়ে খুব সহজেই প্রেমেন্ট করতে পারবেন।  বিকাশ দিয়ে পেমেন্ট করতে হলে আপনার সর্বপ্রথম একটি বিকাশ একাউন্ট খোলার দরকার হবে ।  বিকাশ একাউন্ট খোলার মাধ্যমে আপনি সব ধরনের পেমেন্ট করতে পারবেন এমনকি নিজের মোবাইল ফোনে  ফ্লাক্সি লোড করতে পারবেন ।   এই পোস্টটিতে আপনি জানতে পারবেন বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং ধাপে ধাপে অনলাইনে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে ।

বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র / ডকুমেন্টস

বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনার কিছু ডকুমেন্টস এর দরকার হবে ।  এর ভিতরে সবথেকে বেশি ব্যবহৃত ডকুমেন্টস হলো আপনার এনআইডি কার্ড বা  ন্যাশনাল আইডেন্টিটি কার্ড ।  আপনার পাসপোর্ট সাইজের তিন কপি ছবি লাগবে ।  সব সময় ব্যবহৃত হয় এমন একটি ফোন নাম্বার দরকার হবে ।

আরো পড়ুনঃ  নগদ একাউন্ট খোলার সবগুলো নিয়ম

সাধারণত এই তিনটি ডকুমেন্টস থাকলে আপনি খুব সহজেই বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবে ।  এছাড়াও এই  ডকুমেন্টস  গুলোর বিকল্প হিসেবে  আরো অনেক কাগজপত্র রয়েছে যেগুলো দিয়ে আপনি বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন ।  সেই সম্পর্কে  নিচে জানতে পারবেন ।

বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য সাধারণ ডকুমেন্টস

  1.  ন্যাশনাল আইডেন্টিটি কার্ড (NID)/ ভোটার আইডি কার্ড ।
  2. পাসপোর্ট সাইজের তিন কপি ছবি  ছবি ।
  3. মোবাইল নাম্বার ।

সাধারণত এই তিনটি জন্য ডকুমেন্টস থাকলে আপনি একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন ।  এই তিনটি ডকুমেন্টস নিয়ে আপনি একটি এজেন্ট এর সাথে যোগাযোগ করুন তাহলে সে আপনাকে একাউন্ট খুলতে সাহায্য করবে । সর্বোচ্চ 24 ঘন্টার ভিতরে আপনার একাউন্ট একটিভ হয়ে যাবে ।  মনে রাখবেন বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্পূর্ণ  ফ্রী কোন টাকা দেবার দরকার নেই ।

আরো পড়ুনঃ  বাংলাদেশে মোবাইল ব্যাংকিং পরিষেবা ও এর গুরুত্ব

বিকাশ একাউন্ট খোলার বিকল্প ডকুমেন্ট

উপরে যে তিনটি সাধারণ রকমের কথা উল্লেখ করা হয়েছে এই গুলো যদি আপনার কাছে না থাকে তাহলে আপনি নিজে উল্লেখিত  বিকল্প  ডকুমেন্টস দিয়ে আপনার বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন ।

  1. বাণিজ্য লাইসেন্স (Trade License )
  2. শিক্ষার্থী আইডি কার্ড (Student ID Card)
  3. ভ্যাট নিবন্ধকরণ শংসাপত্র ( VAT Registration Certificate)
  4.  ই-টিআইএন শংসাপত্র (e-TIN Certificate )
  5. ব্যাংক সলভেন্সি শংসাপত্র  (Updated Bank Solvency Certificate )
  6. ক্লায়েন্ট তালিকা ( Client List.)
  7. অভিজ্ঞতা শংসাপত্র (Experience Certificate)
  8. অনলাইন এনআইডি কার্ড (NID Card Online copy)

উপরে উল্লেখিত ডকুমেন্টস গুলো নিয়ে আপনি যদি কোন এজেন্ট অথবা কাস্টমার কেয়ার এর সাথে যোগাযোগ করেন তাহলে আপনাকে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে দেওয়া হবে । সর্বোচ্চ 24 ঘন্টার ভিতরে বিকাশ একাউন্ট একটিভ করা হবে।

আরো পড়ুনঃ  বিকাশ উবার অফার ২০২২ । ডিসকাউন্ট: ১৮০ টাকা

এইখানে বিকল্প কিছু ডকুমেন্টস এর কথা উল্লেখ করা হয়েছে এগুলো সাধারণত বিজনেস যারা করে তাদের জন্য এই ডকুমেন্টসগুলো দরকার হবে । একজন সাধারণ ব্যক্তি হলে আপনাকে এই ডকুমেন্টস দেখানোর দরকার নেই।

আপনি সাধারণ ডকুমেন্টসগুলো নিয়ে কোন  এজেন্ট এর সাথে যোগাযোগ করুন ।

অনলাইনে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

অনলাইনে বিকাশ একাউন্ট খোলার সব থেকে নিরাপদ এবং সময় সাশ্রয় ।  আমি আপনাকে অনুরোধ করবো আপনি অনলাইনে আপনার বিকাশ একাউন্ট খুলুন তাহলে আপনি অনেক সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন সুবিধাগুলো কি কি সেই বিষয়ে আপনি পড়ে আসতে পারেন । আপনি যদি অনলাইনে বিকাশ একাউন্ট খুলবেন তাহলে আপনার  বিকাশ অ্যাপস ডাউনলোড করা  প্রয়োজন হবে ।

বিকাশ একাউন্ট খুললেই বোনাস

নিচে বিকাশ এপস ডাউনলোড এর আপনি একটি লিঙ্ক পেয়ে যাবেন এই লিঙ্ক থেকে আপনি যদি বিকাশ একাউন্ট খুলেন তাহলে আপনি শুরু থেকে ২০ টাকা কমিশন পাবেন ।  এবং যে কোন লেনদেন করলে আর ৮০ টাকা কমিশন পাবেন।

বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করার লিংক

বিকাশ অ্যাপ এই লিংক হতে ডাউনলোড করুন। আর সাথে তো বোনাস থাকছেই। লিংকটি হলো

ডাউনলোড করুন 

অনলাইনে বিকাশ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি

নতুন বিকাশ একাউন্ট খোলা একদম সিম্পল ! বর্তমানে সকল এয়ারটেল, বাংলালিংক, টেলিটক, গ্রামীণফোন এবং রবি গ্রাহকগণ বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন নিজের ফোন থেকেই! বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করে অ্যাপ থেকেই ঘরে বসে একাউন্ট খুলতে পারবেন নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করে।

ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টে ই-কেওয়াইসির মাধ্যমে একাউন্ট খুলুনঃ 

নিকটবর্তী ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টে বিকাশ একাউন্ট খুলতে নিয়ে আসুন

১। মোবাইল ফোন

২। জাতীয় পরিচয়পত্রের মূল কপি

এজেন্ট থেকে একাউন্ট খোলার পদ্ধতিঃ 

  1. এজেন্ট আপনার মোবাইল নাম্বার ও অপারেটর নিশ্চিত করে একাউন্ট খোলার জন্য অনুমতি নেবেন।
  2. আপনার নাম্বারে পাঠানো রেফারেন্স নাম্বারটি নেবেন।
  3.  আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের সামনের ও পেছনের অংশের ছবি তুলবেন।
  4. এজেন্ট ই-কেওয়াইসি এন্ট্রির জন্য আপনার একটি ছবি তুলবেন।
  5. সফল রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হলে আপনি একটি কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন।

এজেন্ট পয়েন্টে কেওয়াইসি ফর্ম পূরণ করে বিকাশ একাউন্ট খুলুনঃ

নিকটবর্তী এজেন্ট পয়েন্টে বিকাশ একাউন্ট খুলতে নিয়ে আসুন

  1. মোবাইল ফোন
  2.  জাতীয় পরিচয় পত্র (মূল এবং ফটোকপি)
  3. ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি

বিকাশ গ্রাহক সেবায় বিকাশ একাউন্ট খুলুনঃ

নিকটবর্তী গ্রাহক সেবায় বিকাশ একাউন্ট খুলতে নিয়ে আসুন

  1. মোবাইল ফোন
  2. জাতীয় পরিচয়পত্র (ফটোকপি) / ড্রাইভিং লাইসেন্স (মূল এবং ফটোকপি) / পাসপোর্ট (মূল এবং ফটোকপি)
  3. ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি

গ্রাহক সেবা কেন্দ্রে বিকাশ একাউন্ট খুলুনঃ

নিকটবর্তী গ্রাহক সেবা কেন্দ্রে বিকাশ একাউন্ট খুলতে নিয়ে আসুন

  1.  মোবাইল ফোন
  2.  জাতীয় পরিচয়পত্র (মূল এবং ফটোকপি)/ মূল ড্রাইভিং লাইসেন্স / মূল পাসপোর্ট
  3.  ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি

একাউন্ট ওপেনিং ফরমটি পূরণ করুন এবং আপনার বৃদ্ধাঙ্গুলির ছাপ ও স্বাক্ষর দিন।

বিকাশ পিন এক্টিভেশন পদ্ধতি

বিকাশ একাউন্ট খোলার পর আপনাকে আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যুটি এক্টিভেট করে নিতে হবে। আপনার মোবাইল মেন্যু এক্টিভেট করতে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করুনঃ

  1. *২৪৭# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান।
  2.  “ এক্টিভেট মোবাইল মেন্যু” বেছে নিন।
  3. বিকাশ একাউন্টের জন্য ৫ ডিজিটের পিন নম্বরটি প্রবেশ করান
  4.  কনফার্ম করার জন্য আপনার পিন নম্বরটি আবার প্রবেশ করান
  • আপনার পিন নম্বরটি সব সময় গোপন রাখুন

সকল প্রক্রিয়া সঠিক ভাবে সম্পন্ন হবার পর আপনার মোবাইল নম্বরটি একটি বিকাশ একাউন্ট নম্বর হিসেবে গণ্য হবে। আপনার বিকাশ একাউন্ট এর মাধ্যমে প্রাথমিক ভাবে মোবাইল রিচার্জ, ক্যাশ ইন এবং টাকা গ্রহণ সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। তবে, আপনার KYC ফরম এর তথ্য যাচাই হয়ে গেলে, ৩-৫ দিনের মধ্যে আপনি “ক্যাশ আউট”, “ মোবাইল রিচার্জ “, “পেমেন্ট” এবং বিকাশ এর  অন্যান্য সেবা সমূহ উপভোগ করতে পারবেন। আপনার একাউন্টটি সম্পূর্ণভাবে সক্রিয় হওয়ার পর *247# ডায়াল করে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা, সপ্তাহে ৭ দিন বিকাশের সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। একজন গ্রাহক গ্রাহক সেবা কেন্দ্র অথবা গ্রাহক সেবা থেকে একাউন্ট খুললে সাথে সাথে বিকাশ এর সকল সেবা উপভোগ করতে পারবেন।

সারগো আইটি নিউজ

টেক ও প্রযুক্তির সকল তথ্য সকল মানুষের সাথে শেয়ার করা এবং অনলাইনে নিরপত্তা নিশ্চিত করাই সারগো আইটি নিউজের মূল লক্ষ্য । তাই টেক ও প্রযুক্তির সকল তথ্য জানার জন্য নিয়মিত আমাদের ব্লগে চোখ রাখুন এবং বিভিন্ন আপডেট ই-মেইলে পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাবস্ক্রিপশন অন করে রাখুন।
Back to top button

Adblock Detected

Please Disable your AdBlocker