অ্যাসাইনমেন্টশিক্ষাষষ্ঠ/৭ম/৮ম

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ তৃতীয় (৩য় সপ্তাহ) সমাধান (১০০% নির্ভুল)

৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২২ তৃতীয় সপ্তাহ


(১০০% নির্ভুল) ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ তৃতীয় (৩য় সপ্তাহ) সমাধান। আপনি কি ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নের সমাধান খুঁজছেন? তবে আমি বলব যে আপনি সঠিক জায়গায় আছেন। ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২২ সালে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে আপনাদের প্রথম সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট প্রকাশ করেছে।

সুতরাং এখনই আপনাদের এসাইনমেন্ট তৈরি করা শুরু করে দেওয়া উচিত। ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট সমাধান ও সপ্তম শ্রেণির বাংলা এসাইনমেন্ট দেখুন। ৭ম শ্রেণির বাংলা এসাইনমেন্ট সমাধান ডাউনলোড করুন। ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২ দেখে নিন। ৭ম শ্রেণির এসাইনমেন্ট বিজ্ঞান ২০২২ দেখুন।

এক নজরে সম্পূর্ণ পোস্ট show

সপ্তম শ্রেণির সকল সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ একত্রে এইখানে দেখুন

বিভিন্ন সপ্তাহে সপ্তম শ্রেণির বিভিন্ন অ্যাসাইনমেন্ট বিজ্ঞানদেশ শিক্ষা অধিদপ্তর দ্বারা প্রকাশিত হচ্ছে । তাই সকল অ্যাসাইনমেন্ট একত্রে পাওয়া দুষ্কর। তাই সারগো এডুকেশন সপ্তম শ্রেণির সকল সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ একত্রে প্রকাশ করছে। আর তাই সপ্তম শ্রেণির সকল সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ একত্রে এইখানে দেখুন।

এই ওয়েব সাইটের অ্যাসাইনমেন্ট সমূহ অভিজ্ঞদের দ্বারা তৈরি করা। কেউ যদি এখান হতে কন্টেন্ট কপি করে অন্য কোথাও প্রকাশ করেন তাহলে গুগল কপিরাইট নিয়ম অনুসারে DMCA লিগ্যাল অ্যাকশন নেওয়া হবে।

৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নের উত্তর ২০২২ (৩য় সপ্তাহ)

প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে নির্দিষ্টসংখ্যক প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে হবে। এবং অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে হবে। তাই আপনাদের জন্য সপ্তম শ্রেণীর প্রথম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট বিজ্ঞান এখানে দেওয়া হয়েছে।

৭ম শ্রেণির সকল সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ একত্রে এইখানে দেখুন

বিভিন্ন সপ্তাহে ৭ম শ্রেণির বিভিন্ন অ্যাসাইনমেন্ট বিজ্ঞানদেশ শিক্ষা অধিদপ্তর দ্বারা প্রকাশিত হচ্ছে । তাই সকল অ্যাসাইনমেন্ট একত্রে পাওয়া দুষ্কর। তাই সারগো এডুকেশন ৭ম শ্রেণির সকল সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ একত্রে প্রকাশ করছে। আর তাই ৭ম শ্রেণির সকল সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ একত্রে এইখানে দেখুন।

বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট প্রশ্ন ৩য় সপ্তাহঃ 

এসাইনমেন্ট শিরোনামঃ 

স্বাস্থ্য ঝুঁকি সৃষ্টিতে অণুজীবের প্রভাব এবং সচেতনটা সৃষ্টি

৭ম শ্রেনি ৩য় সপ্তাহের বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২২

৭ম শ্রেনি ৩য় সপ্তাহের বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর এখান থেকে শুরু

অনুজীব দুটির নাম উল্লেখকরণ ও প্রকৃতি

দুটি অনুজীবের নাম হলো ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া। অনুজীব দুটির প্রকৃতি বিবেচনা করলে যা দেখা যায়

অণুজীব হলো সেই সকল অনুবীক্ষনিক জীব যাদেরকে খালি চোখে দেখা যায় না। এটি এককোষী বা বহুকোষী হতে পারে।

অণুজীবের সম্ভাব্য অস্তিত্ব প্রাচীনকাল থেকেই সন্দেহ করা হয়েছিল, যার সর্বপ্রথম উদাহরন পাওয়া যায় খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দীতে ভারতের জৈন শাস্ত্রে । অণুজীবের বৈজ্ঞানিক অধ্যয়ন প্রথম শুরু হয় ১৬৭০ দশকে অ্যান্টনি ভ্যান লিউয়েনহুক এর অণুবীক্ষণ যন্ত্রের পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে। ১৮৫০ দশকে, লুই পাস্তুর উপলব্ধি করে যে অণুজীব খাদ্যের পচন সৃষ্টি করে, যার ফলে তিনি “স্বতঃস্ফূর্ত প্রজন্ম” তত্ত্বকে বাতিল করেন। ১৮৮০ দশকে, রবার্ট কচ আবিষ্কার করেন যে বিভিন্ন ধরনের অণুজীব যক্ষ্মা, কলেরা, ডিপথেরিয়া এবং অ্যানথ্রাক্স সহ বিভিন্ন ধরনের রোগ সৃষ্টি করে।

স্বাস্থ্য ঝুঁকি সৃষ্টিতে অনুজীব দুটির প্রভাব

ভাইরাসঃ

ভাইরাস হলো এক প্রকার অতিক্ষুদ্র জৈব কণা বা অণুজীব যারা জীবিত কোষের ভিতরেই মাত্র বংশবৃদ্ধি করতে পারে। এরা এক্যারিওটা শ্রেণির সদস্য ও‌ আণুবীক্ষণিক এবং অকোষীয়।এরা সরলতম জীব।ভাইরাস জৈব রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে গঠিত এবং উপযুক্ত পোষক দেহের অভ্যন্তরে পোষক দেহের জৈব রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করে সংখ্যা বৃদ্ধি করতে সক্ষম । সকল ভাইরাসে এ দুটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান । তাই ভাইরাসকে এক প্রকার জীব হিসেবে বিবেচনা করা হয়।ভাইরাস মানুষ,পশু-পাখি, উদ্ভিদের বিভিন্ন রোগের জন্য দায়ী। এমনকি, কিছু ভাইরাস ব্যাক্টেরিয়ার মধ্যে বংশবৃদ্ধি করে- এদের ব্যাক্টেরিওফেজ (Bacteriophage) বলা হয়।

ভাইরাস ল্যাটিন ভাষা হতে গৃহীত একটি শব্দ। এর অর্থ হল বিষ। আদিকালে রোগ সৃষ্টিকারী যে কোন বিষাক্ত পদার্থকে ভাইরাস বলা হত। বর্তমান কালে ভাইরাস বলতে এক প্রকার অতি ক্ষুদ্র আণুবীক্ষণিক অকোষীয় রোগ সৃষ্টিকারী বস্তুকে বোঝায়। উদ্ভিদ ও প্রাণীর বহু রোগ সৃষ্টির কারণ হল ভাইরাস। ভাইরাস কে জীবাণু না বলে ‘বস্তু’ বলা হয়। কারণ, জীবদেহ ডিএনএ,আরএনএ ও নিওক্লিক এসিড দিয়ে গঠিত,প্রোটিন তাই ভাইরাস অকোষীয়।

ব্যাকটেরিয়াঃ

ব্যাকটেরিয়া হলো এক প্রকারের আদি নিউক্লিয়াসযুক্ত,অসবুজ, এককোষী অণুজীব। এরা এবং (আরকিয়া) হলো প্রোক্যারিয়ট (প্রাক-কেন্দ্রিক)। ব্যাকটেরিয়া আণুবীক্ষণিক জীব। বিজ্ঞানী অ্যান্টনি ভ্যান লিউয়েন হুক সর্বপ্রথম ১৬৭৫ খ্রিস্টাব্দে বৃষ্টির পানির মধ্যে নিজের তৈরি সরল অণুবীক্ষণযন্ত্রের নিচে ব্যাকটেরিয়া পর্যবেক্ষণ করেন।

মানুষ ও অধিকাংশ প্রাণীতে সর্বাধিক সংখ্যক ব্যাকটেরিয়া থাকে অন্ত্রে ও একটি বিরাট অংশ থাকে ত্বকে।[১১] ইমিউনতন্ত্রের কার্যকারিতার ফলে মানব দেহে অবস্থিত বেশিরভাগ ব্যাকটেরিয়াই কোন ক্ষতি করতে পারে না। যদিও অনেক ব্যাকটেরিয়া বিশেষ করে অন্ত্রের গুলো মানুষের জন্যে উপকারী, তথাপি কিছু ব্যাকটেরিয়ার প্রজাতি রোগজনক এবং সংক্রামক ব্যাধির কারণ। যেমন, কলেরা, সিফিলিস, অ্যানথ্রাক্স, কুষ্ঠব্যাধি, বিউবনিক প্লেগ ইত্যাদি। শ্বাস নালীর সংক্রমণের ফলে সৃষ্ট রোগসমূহ হলো ব্যাকটেরিয়াজনিত সর্বাপেক্ষা মারত্মক ব্যাধি। শুধু যক্ষ্মারোগেই ২০১৮ সালে সারা বিশ্বে আক্রান্ত হয় এক কোটি মানুষ এবং মারা যায় ১৫ লাখ মানুষ।

অনুজীব সৃষ্ট স্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রতিরোধে করণীয়

  • কাজ, স্কুল এবং পাবলিক এলাকা থেকে বাড়িতে থাকুন এবং চিকিৎসা সেবা ব্যতীত আইসোলেশনে থাকুন।
  • গণপরিবহন, ট্যাক্সি এবং রাইড-হেলিং পরিষেবাগুলি এড়িয়ে চলুন।
  • অন্য মানুষ বা পোষা প্রাণীর আশেপাশে কাপড়ের মুখোশ পরুন।
  • কমপক্ষে 20 সেকেন্ডের জন্য সাবান এবং জল দিয়ে ঘন ঘন আপনার হাত ধুয়ে নিন।
  • আপনার বাড়ির অন্যান্য লোক বা পোষা প্রাণী থেকে যতটা সম্ভব নিজেকে বিচ্ছিন্ন করুন।
  • সম্ভব হলে একটি পৃথক বেডরুম এবং বাথরুম ব্যবহার করুন।
  • থালা-বাসন, গ্লাস, বিছানাপত্র এবং অন্যান্য গৃহস্থালী জিনিসপত্র ভাগ করা এড়িয়ে চলুন।
  • প্রতিদিন প্রায়ই স্পর্শ করা পৃষ্ঠগুলি পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত করুন।

অনুজীব সৃষ্ট স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে সচেতনতা তৈরিতে ভূমিকা

এসাইনমেন্ট সমাধানের কাজ চলছে। আমরা খুব দ্রুত বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট সম্পূর্ণ সমাধান ৩য় সপ্তাহ ২০২২ দিতে পারবো। আমাদের সাথেই থাকুন।

আরো পড়ুনঃ  সপ্তম (৭ম) শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২২ চতুর্থ (৪র্থ সপ্তাহ)

সারগো এডুকেশন

শিক্ষা সম্পর্কিত যে কোন আপডেট যেমনঃ ভর্তি, নোটিশ, রেজাল্ট, এই ওয়েব সাইটে সবার আগে প্রকাশ করা হয়। তাই যে কোন আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেখুন এবং ই-মেইল সাবস্ক্রিপশন অন করে রাখুন।

Leave a Reply

Back to top button

Adblock Detected

Please Disable your AdBlocker