২০২২ সালের এসএসসি ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান (১০ম সপ্তাহ)
|

২০২২ সালের এসএসসি ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান (১০ম সপ্তাহ)

২০২২ সালের এসএসসি ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট ১০ম সপ্তাহ সমাধান SSC 2022 Islam Assignment 10th week খুজছিলে তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট টি। ২০২২ সালের এসএসসি ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট ১০ম সপ্তাহ সমাধান SSC 2022 Islam Assignment 10th week খুজছিলে তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট টি।

সূরা আল- মাউনের অর্থঃ

আপনি কি দেখেছেন তাকে, যে বিচারদিবসকে মিথ্যা বলে? সে সেই ব্যক্তি, যে এতীমকে গলা ধাক্কা দেয় এবং মিসকীনকে অন্ন দিতে উৎসাহিত করে না। অতএব দুর্ভোগ সেসব নামাযীর, যারা তাদের নামায সম্বন্ধে বে-খবর; যারা তা লোক-দেখানোর জন্য করে এবং নিত্য ব্যবহার্য্য বস্তু অন্যকে দেয় না।

সূরা আল-মাউনের ব্যাখ্যাঃ

কুরআনের ১০৭ তম সূরা। এই সূরাটি মক্কায় অবতীর্ণ হয়েছে এবং এর আয়াত সংখ্যা ৭ টি। এ সূরায় কাফের ও মুনাফেকদের কতিপয় দুষ্কর্ম উল্লেখ করে তজ্জন্য জাহান্নামের শাস্তি বর্ণনা করা হয়েছে। এ সূরায় এমন সব নামাযীদেরকে ধ্বংসের বার্তা শুনানো হয়েছে যারা নিজেদের নামাযে গাফলতি করে এবং লোক দেখানো নামায পড়ে। এটা ছিলো সংক্ষিপ্ত বর্ণনা।

সূরা আল-মাউন এর বিস্তারিত বর্ণনা জানবো।

সূরা আল-মাউনের ব্যাখ্যা
সূরা আল-মাউনের ব্যাখ্যা
সূরা আল-মাউন এর শিক্ষাগুলোর বাস্তব প্রয়োগঃ
১. ইয়াতীমকে বিপদে সাহায্য করা।
২. ইয়াতীমকে না তাড়িয়ে দেওয়া ।
৩. দুঃস্থদের না তাড়িয়ে দেওয়া ।
৪. আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য সালাত আদায় করা ।
৫. দুঃস্থদের বিপদে সাহায্য করা ।
৬. ইয়াতীমকে না তাড়াতে পরিবারের সদস্যদের বলা।
৭. দুঃস্থদের বিপদে সাহায্য করতে আত্মীয় স্বজনদের উৎসাহ দেওয়া ।
৮. দুঃস্থদের না তাড়াতে বন্ধু-বান্ধবকে বলা।
৯. সালাতে উদাসীন না হওয়া ।
১০. বিশুদ্ধভাবে সালাত আদায় করা।
১১. গরিব-দুঃখীদের ওপর অত্যাচার-নিযতিন দেখলে তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো ।
সুরা আল-মাউনের বর্ণিত শিক্ষাগুলোর সাথে আমার পরিবারের সামঞ্জস্য বিধান করে গত ১ মাসের কার্যক্রমের ১টি ছক (পোর্টফলিও) তৈরি করা হলোঃ

আরো পড়ুনঃ  এইচএসসি পদার্থ বিজ্ঞান ১ম পত্র প্রশ্ন কুমিল্লা বোর্ড ২০২১
তারিখকাজ
১ থেকে ৪ তারিখ১. ইয়াতীম ও মিসকীনদের খাদ্য খাওয়ানোর প্রতি উৎসাহ প্রদান করা হচ্ছে।
৫ থেকে ৯ তারিখ২. যারা সালাতের ব্যাপারে অমনোযোগী তাদের সতর্ক করা হচ্ছে।
১০ থেকে ১৫ তারিখ৩. লোক দেখানো আমল আল্লাহ তাআলার কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।
১৬ থেকে ২০ তারিখ৪. সৎ কাজের প্রাতি ডৎসাহা হওয়া দরকার ।
২১ থেকে ২৯ তারিখ৫. সালাতের ব্যাপারে উদাসীন ব্যক্তিদের জন্য দুভোঁগ।
৩০ তারিখের কাজ৬. বিচার দিবস কে অস্বীকার করা খুবই জঘন্য কাজ এটি কাফের মুনাফিকদের কাজ।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *