১৬ই ডিসেম্বর কেন বিজয় দিবস?

১৬ই ডিসেম্বর কেন বিজয় দিবস?

পাকিস্তান সেনাবাহিনী ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে বাংলাদেশে (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) গণহত্যা শুরু করে। ২৬ মার্চ গ্রেপ্তার হওয়ার আগে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসাবে ঘোষণা করেন। ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরে বঙ্গবন্ধুকে রাষ্ট্রপতি এবং তাজউদ্দীন আহমদকে প্রধানমন্ত্রী করে স্বাধীন বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠন করা হয়। ডিসেম্বর পর্যন্ত পাকিস্তানের সাথে বাংলাদেশের যুদ্ধ চলতে থাকে, যার শেষ হয় ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পাকিস্তানের আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে। অর্থাৎ মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জিত হয় ১৬ ডিসেম্বরে, কিন্তু ২৬ মার্চ থেকেই বাংলাদেশ স্বাধীন। এ কারণেই ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়।

কিন্তু আমরা যদি এমনি বলে দিই আমরা এখন স্বাধীন, পাকিস্তান রাষ্ট্র কি তাদের ভূখণ্ড ছেড়ে দেবে? তাই মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়, সেদিন সেই সময় থেকেই। আর দীর্ঘ ৯ মাস পর আমরা যুদ্ধে জয়লাভ করি। স্বাধীনতা আর আমাদের মাঝে কোনো বাধা দাঁড়ায় না। তাই ১৬ ই ডিসেম্বর আমাদের বিজয় দিবস।

২৬শে মার্চ সশস্ত্র যুদ্ধ শুরু হলেও পূর্ব পাকিস্তানে তখন মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ চলছিলো বর্তমান পাকিস্তানের সাথে যেটা তখন ছিলো পশ্চিম পাকিস্তান।

তাই পূর্ব পাকিস্তানের বাঙ্গালীদের মধ্যে যারা পূর্ব পাকিস্তানকে মুছে দিয়ে সেখানে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার চেষ্টায় ছিলেন তাদের প্রতিনিধি শেখ মুজিবুর রহমান ২৬ শে মার্চের প্রথম প্রহরে ঘোষনা দেন, আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন। এই দেশে পাকিস্তানী হানাদারদের সাথে লড়াই করতে সর্বস্তরের জনগনকে এক হয়ে যুদ্ধ করতে আহবান জানান তিনি। শুধু রাজাকার বাহিনী ছাড়া বাকি সবাই সেই যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে পাকিস্তানি হানাদার সেনাদের বিরুদ্ধে। তাই ২৬ শে মার্চকে মুক্তিযুদ্ধ ঘোষনা দিবস না বলে স্বাধীনতা দিবস বলা হয়। পূর্ব পাকিস্তান নামটিকে স্বাধীনচেতা বাঙ্গালীরা অন্তর থেকে ঘৃৃৃনা করতো। বাংলাদেশ নামটিকে তারা ভালোবাসতো। তাই ২৬শে মার্চের আগে থেকেই বাংলাদেশ নামটি সবার মুখে মুখে ছিলো। যখন শেখ মুজিব বললো, আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন, তখন থেকেই বাংলাদেশ স্বাধীন এবং পাকিস্তানিরা তখন বাংলাদেশিদের কাছে বিদেশি ও তাদের সেনারা হচ্ছে বহিঃশত্রু।

আরো পড়ুনঃ  ইত্যাদি অনুষ্ঠানের টিকিট কিভাবে পাবেন?

২৬শে মার্চ থেকে যুদ্ধ শুরু হয়। তাই সেদিনটিকে স্মরনীয় করে রাখতে সেদিন স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়। ১৬ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীন হয় তাই সেইদিন বিজয় দিবস পালন করা হয়।

১৬ই ডিসেম্বর হচ্ছে বাংলাদেশের বিজয় দিবস। এই দিনটিতে দুটি দেশের বিজয় হয়। ভারতের সেনাবাহিনীর বিজয় হয় এবং বাংলাদেশের সাধারন মুক্তিকামী মানুষের বিজয় হয়। তাই বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশই এই দিনটিতে বিজয় দিবস পালন করে।

আমাদেরকে গুগল নিউজে ফলো করতে এইখানে ক্লিক করে স্টার বাটন প্রেস করুন।

Similar Posts

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *